মিস ইউনিভার্স খেতাব জিতলো কৃষ্ণাঙ্গ সুন্দরী লিলা লোপেজ
Thursday, 15 September 2011 এএফপি , রয়টার্স অনলাইন।।

 

বিশ্বের অন্যতম সম্মানজনক প্রতিযোগিতা মিস ইউনিভার্স-২০১১ খেতাব জিতলো মিস অ্যাঙ্গোলা সুন্দরী লিলা লোপেজ। ২৫ বছরের নজরকাড়া এ তন্বী বিজয়ীর মুকুট পরে সহাস্যে জানিয়ে দিলেন বস্নাক ইজ বিউটিফুল।

 ইউনিভার্স খেতাব জিততে লোপেজ সারাবিশ্বের ৮৮ জন সুন্দরীর সৌন্দর্যকে মস্নান করে সবার সামনের সারিতে দাঁড়িয়েছে। পরেছে বিজয়ের মুকুট। গত সোমবার
রাতে ব্রাজিলের সাও পাওলোর ক্রেডিকার্ড হলে বিশ্বের অন্যতম জাকজমকপূর্ণ মিস ইউনিভার্স প্রতিযোগিতার ৬০তম আসর বসে। প্রতিযোগিতার গ্রান্ড ফাইনালের রাতের জমকালো আসরে শীর্ষ ১৫ সুন্দরী একে একে সাঁতারের এবং সান্ধ্যকালীন পোশাক পরে বিচারকদের সামনে আসেন। পরে বিচারকদের প্রশ্নের বুদ্ধিদীপ্ত উত্তর দেন তারা। এর মধ্য দিয়ে শীর্ষ ১০ প্রতিযোগীকে নির্বাচনের পর ঘোষণা করা হয় মিস ইউনিভার্সের নাম।
নিজের দেশের জন্য প্রথম এ সম্মান বয়ে আনেন লোপেজ। বিট্রেনে ব্যবসা ব্যবস্থাপনা বিষয়ে পড়ুয়া এই তন্বীর জীবনে নামে সুখের সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। যখন শুনতে পান নিজের নাম এবং মাথায় বিজয়ীর মুকুট পরিয়ে দেন তার অগ্রজ গতবারের মিস ইউনিভার্স।

 

এছাড়া এই আসরে প্রথম রানার আপ হন মিস ইউক্রেন ওরেসা স্টিফানকো এবং দ্বিতীয় রানার আপ মিস ব্রাজিল প্রিসিলা মাকাডো।ধারণা করা হচ্ছিল, লাতিন আমেরিকার সুন্দরীদের কেউ এবার মুকুট জিতে নেবেন।এর আগের ১০টি প্রতিযোগিতায় সাতবার সেরা পুরস্কার জিতে নেন লাতিন সুন্দরীরা। এবার সবার দৃষ্টি ছিল ভেনিজুয়েলার স্লেনডার ভেনেসা গোনকাভেসের দিকে। প্রতিযোগিতায় সাঁতারের পোশাক পরার পর্বে বাদ পড়ে যান তিনি। ২০০৮ ও ২০০৯ সালে ভেনিজুয়েলার সুন্দরীরা মুকুট জিতে নিয়েছিলেন। এ পর্যন্ত তারা মুকুট জিতেছেন ছয়বার। দক্ষিণ আমেরিকার বৃহত্তম শহর সাও পাওলোয় এ অনুষ্ঠান বিশ্বের ১০০ কোটি মানুষ টেলিভিশনে উপভোগ করেন।

পাঠকের মন্তব্য
 
    মন্তব্য প্রদান করুন
    Your message